ক্লান্তি

বয়স আর ক্লান্তি মনে হয় সমান্তরালভাবেই চলে। আজকাল অনেক রোগ ভর করেছে শরীরে! সেই ভোরবেলা থেকে কাজ শুরু হয়। রাত পর্যন্ত আমি একটু পড়ারও সময় পাই না। এইদিকে কত কত পড়া যে জমছে তো জমছেই। রাতে ভাবি ছেলেকে ঘুম পাড়িয়ে পড়তে বসবো। তাও হয়ে ওঠে না যেন। পুত্রকে জয়ে ধরে না শুলে উনি ঘুমান না।... Continue Reading →

আব্বুর চিরকুট আর দেশ থেকে আসা বাক্সভর্তি ভালবাসা

আমার পুত্রের মতো আমিও অপেক্ষায় থাকি কখন ঈদ উপলক্ষ্যে পাঠানো তার নানের, মানে আম্মুর পার্সেলটা আসবে। পুত্র আর আমার পার্থক্য হচ্ছে, উনি একটু পরপর আমাকে জিজ্ঞেস করে অস্থির করতে পারে যে, কখন নান এর গিফট প্যাকেট আসবে, আমি কাউকে অস্থির করতে পারিনা!! নিজেই একটু পরপর ডেলিভারি স্ট্যাটাস চেক করি যে,কতদূর পৌঁছালো। মনে করেন, ৫ মিনিট... Continue Reading →

‘ধর্ষণ অপরাধ’: এই মূলমন্ত্রে আগে দীক্ষা নিন

১. আমি জীবনে প্রথমবার ‘ধর্ষণ’ বিষয়টি নিয়ে সম্যক জ্ঞান পেয়েছিলাম ১৯৯৮ সালে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে মানিক বিরোধী আন্দোলনের সময়। তখন আমার বয়স খুবই অল্প। প্রতিদিনের মিটিং মিছিল আমাকে কৌতুহলী করেছিল কি? না, মানুষের সংখ্যা আমাকে কৌতুহলী করেছিল। হাতে গোনা কয়েকজন প্রথমে প্রতিবাদ শুরু করেছিল। আমার মনে আছে, ছাত্রী হলের মেয়েদের রীতিমতো কাউন্সেলিং করতে হয়েছিল। কেন? তিনটি... Continue Reading →

কর্কট রোগ

গতকালকে যখন আমি ফোন ধরে কাঁদছি, আম্মু যেন দেখেও দেখলো না, বলল, রোগও আছে, চিকিৎসাও আছে। এমন কেন করছো? চিকিৎসা করিয়েই তো এত বছর চললাম... আর আব্বু পাশে থেকে সমানে বলে যাচ্ছে, তোমাকে এতবার নিষেধ করলাম ওকে জানাতে,কেন জানালে? ২০০৯ এ যখন হঠাৎ করেই আম্মুর ক্যান্সার সনাক্ত হলো, আমাদের মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়েছিল! অনেক কষ্টের... Continue Reading →

বাবা দিবসের শুভেচ্ছা আর ভালবাসা

ছোটবেলায় আমাদের বন্ধুদের ভেতর শুধু আমার আর ঐশীর বাবা ক্যাম্পাসে থাকতো না। দুজনেই চাকরী সূত্রে নিজ নিজ কর্মস্থলে থাকতেন। আমাদের দুজনের বাবাদের নিয়ে মানুষের কৌতুহলের সীমা ছিল না। তখন ছোট ছিলাম, আমাদের বন্ধুরা জানতে চাইতো আমাদের বাবা কোথায়!! আমার তো মনে আছে, ক্যাম্পসের অনেক মানুষই আমার কাছ থেকে সেসময় খবর বের করার চেষ্টা করতেন যে,... Continue Reading →

ফোর্সড অ্যাবরশন ও মাতৃত্বের অপমৃত্যুঃ নারীর শরীর, ইচ্ছা/অধিকার বনাম জবরদস্তি

পাবলিক হেলথ নিয়ে  একটি গবেষনার কাজে কোন একটি সরকারী হাসপাতালের ওটির সামনে দাঁড়িয়ে ছিলাম।ভেতর থেকে দু’ধরনের চিৎকার ভেসে অাসছিল। ‘রোগী‘র আর ডাক্তারের। আশেপাশের সবাই মুখ পাংশু করে দাঁড়িয়ে ছিল। তাদেরও সিরিয়াল রয়েছে। ‘হারামজাদী পেট বাঁধাবি,আবার চিৎকারও করবি!! খবরদার একটা শব্দ যেন না শুনি। পেট বাঁধানোর সময় তোদের মনে থাকে না?’ এই বলে আরও নানারকম গালির... Continue Reading →

It’s a new beginning!

I had decided to write every experience from the beginning of my doctoral study. However, it was not possible due to many reasons! But, it has to document anyways. The beginning was last year. New country, new career thought and others, I felt lost. There was no one to say that, trust yourself, do not... Continue Reading →

একদিন…. অনেকদিন…. ২০১৮ এর কথা

আমি ঠিক করেছি আমার ডক্টরাল শিক্ষাসময়ের শুরু থেকে প্রতিটা অভিজ্ঞতা লিখে রাখবো। কিন্তু, অনাকাঙিক্ষত কঠিন অসুখ, সংসার, সন্তান আর প্রফেসরের চাপের মুখে চ্যাপ্টা হয়ে গিয়েছি বলে আর কিছুই লেখা হয়ে ওঠে না। শুরুটা হয়েছিল গত বছর। নতুন দেশ,নতুন ক্যারিয়ার চিন্তা আর নানা ঝড়ঝাপটার ভেতর মনে হলো হারিয়েই যাচ্ছি।  কেউ পাশে নেই বলার জন্য যে, নিজের... Continue Reading →

লিও কথন

জানুয়ারি আমাদের জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি মাস। এটি লিওনেলের জন্মমাস আর আমাদের বিবাহ মাস!! লিওনেলের সাথে তার নানের (নানু) উপহার সংক্রান্ত ছোট্ট কথপোকথন..... নান্ঃ নানসোনা, তোমার জন্মদিনে কি পাঠাবো? লিওনেলঃ একটা বিগ বক্সে করে এত্ত এত্ত কিছু পাঠাও.... লিও খুলতেই থাকবে....খুলতেই থাকবে.. খুলতে খুলতে টায়ার্ড হয়ে যাবে... অতঃপর লিওনেল আজ ভোরে সেই বিগ বক্স হাতে... Continue Reading →

Create a website or blog at WordPress.com

Up ↑